স্ত্রী কখন স্বামীকে তালাক দিতে পারে?

নিম্মোক্ত করাণসমূহ বিদ্যমান থাকলে একজন স্ত্রী তাহার স্বামীকে তালাক দিতে পারেন;

১. স্বামী ৪ বছর যাবত নিরুদ্দেশ/নিখোজ থাকলে।

২. স্বামী যদি ২ বছর যাবত খোরপোষ দিতে ব্যর্থ হয়।

৩. স্বামীর যদি ৭ বছর অথবা তার বেশী কারাদন্ড হয়।

৪. স্বামী যদি কোন যুক্তি সংগত কারণ ব্যতিত ৩ বছর যাবত দাম্পত্য দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয়।

৫. স্বামী যদি বিয়ের সময় পুরষত্বহীন থাকে এবং তা মামলা দায়ের করা পর্যন্ত বজায় থাকলে।

৬. স্বামী ২ বছর যাবত পাগল থাকলে অথবা কুষ্ঠ রোগে বা মারাত্মক যৌনরোগে আক্রান্ত হলে।

৭. বিবাহ অস্বীকার করলে। কোন মেয়ের বাবা বা অভিভাবক যদি ১৮ বছর বয়স হওয়ার আগে মেয়ের বিয়ে দেন, তা হলে মেয়েটি ১৯ বছর হওয়ার আগে বিয়ে অস্বীকার করে বিয়ে ভেঙ্গে দিতে পারে, তবে যদি মেয়েটির স্বামীর সঙ্গে দাম্পত্য সর্ম্পক (সহবাস)স্থাপিত না হয়ে থাকে তখনি কোন বিয়ে অস্বীকার করে আদালতে বিচ্ছেদেরডিক্রি চাইতে পারে।

৮. স্বামী ১৯৬১ সনের মুসলিম পারিবারিক আইনের বিধান লংঘন করে একাধিক স্ত্রী গ্রহণ করলে।

৯. স্বামীর নিষ্ঠুরতার কারণে।

উপরে যে কোন এক বা একাধিক কারণে স্ত্রী পারিবারিক আদালতে বিয়ে বিচ্ছেদের আবেদন করতে পারে।

অভিযোগ প্রমাণের দায়িত্ব স্ত্রীর। প্রমাণিত হলে স্ত্রী বিচ্ছেদের পক্ষে ডিক্রি পেতে পারে, আদালত বিচ্ছেদের ডিক্রি দেবার পর সাত দিনের মধ্যে একটি সত্যায়িত কপি আদালতের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট চেয়ারম্যানের কাছে পাঠাবে।

১৯৬১ সনের মুসলিম পারিবারিক আইন অধ্যাদেশ অনুযায়ী চেয়ারম্যান নোটিশকে তালাক সংক্রান্ত নোটিশ হিসেবে গণ্য করে আইনানুযায়ী পদক্ষেপ নিবে এবং চেয়ারম্যান যেদিন নোটিশ পাবে সে দিন থেকে ঠিক নব্বই দিন পর তালাক চূড়ান্তভাবে কার্যকর হবে।

(সংগৃহীত)

Facebook Comments

Rayhanul Islam

রায়হানুল ইসলাম বর্তমানে আইন পেশায় নিয়জিত আছেন, এছাড়াও তিনি লেখালেখি করেন এবং ল হেল্প বিডির সম্পাদক। তথ্য ও প্রযুক্তি, মনোবিজ্ঞান এবং দর্শনে তার বিশেষ আগ্রহ রয়েছে। প্রয়োজনে: [email protected]

You may also like...

Leave a Reply

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: