মুটিং কী এবং কেন গুরুত্বপূর্ন?

মুটিং

চেম্বারস্ ডিকশনারি অনুসারে মুট হলো কোন বিষয়ে আলোচনার প্রস্তাব দেয়া বা কোন কিছু প্রাকটিস করার প্রস্তাব দেয়া। আবার অক্সফোর্ড ডিকশনারি অনুসারে মুট হলো চর্চার খাতিরে কাল্পনিক মামলার বা কেসের উপর আলোচনার সমাবেশ।

মূলত মুট কোট বা মুটিং হচ্ছে একটি কাল্পনিক কেসে আইনের ছাত্রদের পক্ষে বিপক্ষে যুক্তি তর্ক উপস্থাপন করা। এটি হয়ে থাকে একটি কাল্পনিক কোর্ট যেখানে বিজ্ঞ জজের আসনে বসেন বিচারক গন।

সাধারণত একটি টিমে তিনজন থাকেন, দু জন মুটার এবং একজন রিসার্চর থাকেন, এমন দুটি টিম থাকে, একাধিক বিচারক থাকেন এবং একজন বেঞ্চ অফিসার থাকেন। মজার বিষয় হল দুটি টিমকেই নিজেদের পক্ষে ও বিপক্ষে তৈরি করতে হয় কারণ তারা তাদের অবস্থান (পক্ষে না বিপক্ষে) জানতে পারেন মাত্র পাঁচ কি দশ মিনিট আগেই!!

মুট কোর্ট এমন একটি প্রতিযোগিতা যেখানে প্রতিযোগীদের এবং বিচারকদের খুব বেশি নিয়ম নিতি মেনে চলতে হয়। সাধানত উচ্চ আদালতে যেমন করে একটি মামলা পেশ করা হয় ও বিচার করা হয় তেমনি মুটিং এর সময়েও এ সব নিয়ম কানুন মেনে চলতে হয়। তবে তা হয় খুবই সংক্ষিপ্ত সময়ের মধ্যে (১৫-২০ মি:)

মুটিং কেন গুরুত্বপূর্ণ

আমরা প্রায় সব জব সার্কুলার (circuler) এ দেখি বাস্তব অভিজ্ঞতা চায়, যেটা যে কোন কাজের জন্য বেশ গুরুত্বপূর্ন ও এডভান্স পয়েন্ট। এডভোকেসির মত কাজে সেটি আরও বেশী প্রয়োজন। তাই পড়াশুনা শেষ করার আগেই মুটিং আইনের ছাত্রদের বাস্তব অভিজ্ঞতার সেই সুযোগ করে দিচ্ছে।
মুটের প্রস্তুতি নিতে গিয়ে একজন ছাত্রের গবেষণা ও উপস্থাপন দক্ষতার উন্নতি হয়। Fact গুলো ভালো করে বুঝতে হয়, Issue তৈরি করতে হয়, সর্বোপরি পক্ষ বিপক্ষে দু পক্ষেই নিজের যুক্তি উপস্থাপন ও আপর পক্ষে যুক্তি খণ্ডন করার জন্য প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হয়। অন্য দিকে উপস্থাপন ভঙ্গি, কমিউনিকেশন মেথড (Communication Methord) এ ছাত্রটি বেশ দক্ষতা অর্জন করে। যেটা সুধু মাত্র বই পড়ে বা পরীক্ষায় লিখে আয়ত্ত করা কখনই সম্ভব নয়। এ দক্ষতা একজন ছাত্রের জন্য সারা জীবন আশীর্বাদ স্বরূপ কাজ করে।

বন্ধুদের জানান

ল হেল্প বিডি আইনের আলো ছড়িয়ে দেয়ার জন্য সাধারণ ভাবে আইন নিয়ে আলোচনা করে। আইনের আশ্রয়ে বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য একজন আইনজীবীর পর্যাপ্ত গবেষণা ও কৌশল প্রয়োগ করেন যার ফলে তা সাধারণ আইনের ব্যতিক্রম হতে পারে, আমাদের লেখা এবং সাধারণ সাহায্য কোন আইনজীবীর বিকল্প নয়। প্রয়োজনে একজন বিজ্ঞ আইনজীবীর সাথে যোগাযোগ করুন।

আমাদের সেবা নিতে চাইলে ফর্ম, ই-মেইল lawhelpbd@gmail.com বা ফেসবুকের ম্যসেঞ্জারের মাধ্যমে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: দু:খিত এই লেখাটির মেধাসত্ত্ব সংরক্ষিত !!