দেওয়ানী কার্যবিধি কি ও কেন?

দেওয়ানী কার্যবিধি কি এবং কেন?

দেওয়ান শব্দটি ফার্সি সহজ বাংলায় যার অর্থ দাড়ায় অর্থ , খাজনা, সম্পত্তি। তাহলে, দেওয়ানী মানে অর্থ, খাজনা বা সম্পত্তি সম্পর্কিত। আর কার্যবিধিকে আমার দুটি ভাগে ভাগ করতে পারি, ১। কার্য বা কাজ ২। বিধি বা নিয়ম কানুন সুতরাং বলা যায়  অর্থ বা সম্পদ সম্পর্কিত যেসব বিষয়াদি আদালতের সামনে পেশ করা হবে সেগুলোর কাজ বা কার্যক্রম কিভাবে কোন নিয়ম মেনে পরিচালনা করা হবে তা বলা হয়েছে এই আইনে। এটি একটি পদ্ধতীগত আইন।

ব্রিটিশ আমলে দুটি ল, কমিশন গঠন করে, যার প্রথমটার কোন কার্যকরিতা ছিল না আর ২য় ল কমিশনের আমলে ১৮৫৭ সালে একটি খসড়া বিল পাস হয় এবং সেই বিলটি ১৮৫৯ সালে ৭ নং আইন হিসেবে পাস করা হয়।

এরপর ১৮৭৭ সালে নতুন করে দেওয়ানী কার্যবিধি পাস করে হয় যা পরবর্তীতে বিভিন্ন সংশোধনীর পর ২১ শে মার্চ ১৯০৮ সালে পরিপূর্ণ রূপে একটি আইন হিসেবে পাস হয়। উল্লেখ্য যে এর পরও বিভিন্ন সংশোধনী এসেছে যার সর্বশেষটি ছিল ২০১২ সালে।

এক নজরে দেওয়ানী কার্যবিধি

দেওয়ানী কার্যবিধি

দেওয়ানী কার্যবিধি

  • প্রথম আইন কমিশন – ১৮৩৪ সালে
    • যার চেয়ারম্যান ছিলেন – Lord Macceleg এবং
    • যার মেম্বার ছিলেন – Macloed Anderson Millet
  • ১৮৫৭ সালে বিল আকারে জমা দেয়, ১৮৫৯ সালে প্রথম ড্রাফ্ট হয়।
  • ১৯০৮ সালে ২১ মার্চ আইন হিসেবে পাশ কারা হয়
  • ১৯০৯ সালের ২১ মার্চ  কার্যকর করা হয়।
  • ধারা: ১৫৮ টি
  • সিডিউল: ৫ টি
  • ১ম সিডিউলে : ৫১ টি আদেশ (Order)
  • সর্বশেষ সংশোধন: ২০১২ সালে
  • সিপিসির দুটি অংশ:
    • ১. ধারা: ১৫৮ টি,  এবং
    • ২. আদেশ: ৫১ টি।

টিপস:
# ধারাগুলো (Sections) আইনসভা সংশোধন করতে পারে আর, নিয়মগুলো (Rule)  Supreme Court of Bangladesh সংশোধন করতে পারে।
#
কোন ধারা অসম্পূর্ন থাকলে বুঝতে Order এ যেতে হবে।

কিছু গুরুত্বপূর্ণ সংঙ্গায়ন

  • ২ (১) Code [কোড]: এই সিপিসির সকল ধারা, উপধারা, আদেশ, রুল (ধারা ১২২ অনুযায়ী সুপ্রিম কোর্ট কর্তৃক প্রদত্ত রুল)
  • ২(২) ডিক্রি [Decree]: কোন মোকদ্দমায় আদালতের আনুষ্ঠানিক ও চূড়ান্ত ফলাফল যার মাধ্যমে পক্ষ-গন তাদের বিবাদের বিষয়ে রায় পেয়ে থাকেন।
  • ২(৩) ডিক্রিদার/ ডিক্রি প্রাপক [Decree Holder]: যার পক্ষে ডিক্রিটি [রায়টি] যায় তিনি হন ডিক্রি প্রাপক।
  • ২(৪) জেলা: মৌলিক এখতিয়ার সম্পন্ন প্রধান দেওয়ানি আদালতের যে এলাকা জুড়ে বিচারক ক্ষমতা থাকে তাকে জেলা বলে।
  • ২(৭) সরকারি উকিল [Government Pleader (GP)]: দেওয়ানি মামলায় যেখানে সরকার কোন পক্ষ বা সরকার প্রয়োজন মনে করে, সেখানে সরকারের পক্ষে একজন নিযুক্ত উকিল সরকারের পক্ষে কাজ করেন। ঐ নিযুক্ত উকিল কে সরকারি উকিল বলে।
  • ২(৮) জজ [Judge]: যিনি দেওয়ানি আদালত পরিচালনা করে থাকেন।
  • ২(৯) রায় [Judgment]: ডিক্রি বা অর্ডারের কারণ হিসেবে যে সব বিষয় কোন আদালত/ জজ উল্লেখ করে থাকেন।
  • ২(১০) দায়িক/ জাজমেন্ট ডেটর (যিনি রায় হারেন) [Judgment Debtor]: মোকদ্দমায়/ মামলায় রায়টি যার বিপক্ষে আসে তিনি হন জাজমেন্ট ডেটর।
  • ২(১১) আইনি প্রতিনিধি [Legal Representative]: কোন ব্যক্তির বা সম্পত্তির আইনি প্রতিনিধি যিনি আইন দ্বারা স্বীকৃত বা ক্ষমতা প্রাপ্ত এবং যিনি ঐ ব্যক্তি মারা গেলে মামালায় তার পক্ষভুক্ত হন।
  • ২(১২) মেসনে লাভ [Mesne Profit]: যখন কোন ব্যক্তি কোন সম্পত্তি অবৈধ ভাবে দখল করে রাখে এবং কোন বিশেষ অবদান ছাড়াই সেই সম্পত্তি থেকে কিছু লাভ পেয়ে থাকেন। এই লাভকে মেসনে প্রফিট বলে।
  • ২(১৪) আদেশ [Order]: কোন মোকদ্দমায় আদালতের আনুষ্ঠানিক ও চূড়ান্ত ফলাফল ব্যতীত অন্য যে রায় দেওয়া হয় তাই আদেশ। [পরবর্তীতে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।]

আমাদের দেওয়ানী কার্যবিধি সিরিজের ২য় লেখাটি দেখুন এখানে: ডিক্রি, আদেশ এবং রায়

Rayhanul Islam

রায়হানুল ইসলাম বর্তমানে আইন পেশায় নিয়জিত আছেন, এছাড়াও তিনি লেখালেখি করেন এবং ল হেল্প বিডির সম্পাদক। তথ্য ও প্রযুক্তি, মনোবিজ্ঞান এবং দর্শনে তার বিশেষ আগ্রহ রয়েছে। প্রয়োজনে: [email protected] more at lawhelpbd.com/rayhanul-islam

You may also like...

2 Responses

  1. October 3, 2019

    […] আমাদের দেওয়ানী কার্যবিধি সিরিজের ১ম (এর আগের) লেখাটি দেখুন এখানে: দেওয়ানী কার্যবিধি কি ও কেন? […]

  2. November 3, 2019

    […] আমাদের দেওয়ানী কার্যবিধি সিরিজের ১ম (এর আগের) লেখাটি দেখুন এখানে: দেওয়ানী কার্যবিধি কি ও কেন? […]

Leave a Reply

error: দু:খিত এই লেখাটির মেধাসত্ত্ব সংরক্ষিত !!
%d bloggers like this: