আপিল কেন, কখন, কিভাবে

সহজে বলতে গেলে আপিল হচ্ছে নিচের কোন কোর্টের উপর তার আদেশের , বিচারের ইত্যাদি কারণে ক্ষুব্ধ হয়ে উচ্চতর আদালতে সেই বিষটি তুলে ধরা এবং যথা উপযুক্ত আদেশ চাওয়া।
মনে রাখতে হবে আপিল কিন্তু কোন অধিকার নয়, তার মানে যে কেউ চাইলেই আপিল করতে পারবে না, আপিল হচ্ছে বিশেষ সুযোগ।

আপিল করতে হলে নিচের তিনটি উপাদান থাকতেই হবে
১. কোন একটি কোর্টের সিদ্ধান্ত
২. একজন ব্যক্তি (মামলার বাইরের কোন সংক্ষুব্ধ ব্যক্তি হতে পারে)
৩. এমন কোন অফিস/ ব্যক্তি যিনি আইন দ্বারা আপনার আপিল শুনতে বাধ্য বা চাইলে শুনতে পারেন।
আমাদের আপিলের এই বিশেষ অধিকারটি আসে বাংলাদেশ সংবিধানের ১০৩ অনুচ্ছেদ অনুসারে, আরও স্পষ্ট করে বলা হলে ১০৩(২) তে বলা আছে,

ক. সাংবিধানিক ব্যাখ্যার প্রয়োজনে
খ. মৃত্যুদণ্ড বা যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিতের আবেদনের কারণে
গ. উক্ত (আপিল) বিভাগের অবমাননার কাড়নে

—- আপিলেট ডিভিশন, হাইকোর্ট ডিভিশনের কোন সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল শুনতে পারবেন।

এ ছাড়াও সংসদ দ্বারা পাশ কৃত কোন আপনি আপিলের অধিকার দেওয়া থাকলে তাও শুনতে পারবেন।

আবার, ১০৩(৩) অনুচ্ছেদ অনুসারে বলা হয়েছে,

যেখানে ১০৩(২) দফা প্রযোজ্য নয় তারাও ইচ্ছে করলে আদালতে তাদের অভিযোগ আপিলের জন্য পেশ করতে পারবেন তবে এ ক্ষেত্রে এপিলেট ডিভিশন তা গ্রহণ করতে পারেন নাও করতে পারেন, একে বলা হয় Leave (Permission) to appeal

 

Rayhanul Islam

রায়হানুল ইসলাম বর্তমানে আইন পেশায় নিয়জিত আছেন, এছাড়াও তিনি লেখালেখি করেন এবং ল হেল্প বিডির সম্পাদক। তথ্য ও প্রযুক্তি, মনোবিজ্ঞান এবং দর্শনে তার বিশেষ আগ্রহ রয়েছে। প্রয়োজনে: [email protected] more at lawhelpbd.com/rayhanul-islam

You may also like...

Leave a Reply

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: